মেনু নির্বাচন করুন
খবর

ফরিদপুরে দুই দিনের সাংস্কৃতিক উৎসব উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

 

আগামী শুক্র ও শনিবার সারা দেশের সঙ্গে সাংস্কৃতিক উৎসবে সুর মেলাবে ফরিদপুরের তৃণমূল পর্যায়ের ১৮০ শিল্পী। শুক্রবার বিকেলে ফরিদপুর শহরের কবি জসীমউদ্দীন হলে এই উৎসবের উদ্বোধন করবেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। আজ বুধবার বিকেল সাড়ে চারটায় ফরিদপুরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া।
 
এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন, 'আবহমানকালের অসাম্প্রদায়িক বাঙালি সংস্কৃতি আমাদের ঐতিহ্য। যে কোনো দুর্দিনে- দুঃসময়ে আমরা সংস্কৃতির কাছে আশ্রয় নিয়ে দুর্দম শক্তি অর্জন করে প্রতিবাদে-প্রতিরোধে সামিল হই। তরুণ সমাজকে সেই ঐতিহ্যকে চিন্তা-চেতনায় ধারণ করাতে বর্তমান সরকার কাজ করছে। এ লক্ষ্যে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশের ৬৪ জেলায় শুক্র ও শনিবার দুইদিনের সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্যোগ নিয়েছে। ফরিদপুরে দুই দিনের সাংস্কৃতিক উৎসবে আয়োজন করা হয়েছে।'

তিনি বলেন, 'এই উৎসবে  শুধু জেলা সদরের নয়, উপজেলার পর্যায়ের শিল্পী, কবি ও সাহিত্যিকরা অংশগ্রহণ করবেন।  উৎসবে রবীন্দ্র, নজরুল সঙ্গীত ও দেশাত্মবোধক গান, কবিতা আবৃত্তি, একক অভিনয়, পল্লীগীতি, লালনগীতি, লোকগীতি, জারি, সারি, মুর্শিদী গান ছাড়াও সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে গান, নাটক পরিবেশন করা হবে।'

জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া আরও বলেন, 'দুই দিনের সাংস্কৃতিক উৎসবের মধ্যে দিয়ে বাঙালির শেকড়ের সন্ধান ও নিজ পরিচয়ে উদ্ভাসিত হওয়ার চেষ্টা করব। তরুণ সমাজকে নৈতিক অবক্ষয়সহ সব ধরনের অশুভ শক্তির হাত থেকে মুক্ত করতে আমরা প্রত্যয়ী হব। 

সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মো. এরাদুল হক এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রোকসানা রহমানসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের ফরিদপুরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ছবি


ফাইল


প্রকাশনের তারিখ

২০১৮-০৭-১৮

আর্কাইভ তারিখ

২০১৮-০৮-৩০


Share with :

Facebook Twitter